রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:১১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বিএনপি-জামাতের নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা ফতুল্লায় হান্ড্রেড বাবুর নিয়ন্ত্রণে মাদক ব্যবসা, নীরবতায় থানা পুলিশ প্রধানমন্ত্রীর মহানুভবতায় খালেদা জিয়াকে ২ শর্তে তাকে মুক্তি দিয়েছে, আইনমন্ত্রী ফতুল্লায় বীর মুক্তিযোদ্ধা মেম্বার গিয়াস উদ্দিন হত্যা মামলার আসামির এক্সেল কামালের ফাঁসি কার্যকর কুতুবপুরে মাদকের বিরুদ্ধে মাঠে নামলে সেন্টু চেয়ারম্যান সাংবাদিক সোহেল’র মায়ের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া নারায়ণগঞ্জের পৃথক তিনটি স্থানে বিএনপির নেতা কর্মীদের ককটেল বিস্ফোরণ সিদ্ধিরগঞ্জে জাল নোটসহ গ্রেফতার ১ আগামী ৪ ডিসেম্বর থেকে নারায়ণগঞ্জ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রূপগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় সিএনজির ৬ যাত্রী আহত

সংগীতশিল্পী বাপ্পী লাহিড়ী আর নেই

সংবাদ নারায়ণগঞ্জ:- দুই বাংলার ও ভারতের কিংবদন্তী সংগীতশিল্পী বাপ্পী লাহিড়ী মারা গেছেন। (১৬ ফেব্রুয়ারি) বুধবার সকালে মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়েছে।

মৃত্যুকালে বাপ্পী লাহিড়ীর বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের বরাতে এ খবর প্রকাশ করেছে দেশটির আনন্দবাজার অনলাইন।

বাপ্পী লাহিড়ী পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে সমৃদ্ধ এক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার ডাক নাম আলোকেশ বাপ্পী লাহিড়ী। বাবা অপরেশ লাহিড়ী ছিলেন একজন বাংলা সঙ্গীতের জনপ্রিয় গায়ক। মা বাঁশরী লাহিড়ীও ছিলেন একজন সঙ্গীতজ্ঞ ও গায়িকা, যিনি শাস্ত্রীয় ঘরাণার সঙ্গীত এবং শ্যামা সঙ্গীতে বিশেষ দক্ষ ছিলেন। তাদের পরিবারেরই একমাত্র সন্তান বাপ্পী লাহিড়ী।

তিন বছর বয়সেই তবলা বাজাতে শুরু করেন। তার মায়ের আত্মীয় হিসেবে ছিলেন বিখ্যাত কণ্ঠশিল্পী কিশোর কুমার এবং এস. মুখার্জী। পিতা-মাতার সান্নিধ্যে থেকেই তিনি সঙ্গীতকলায় হাতে খড়ি ও প্রশিক্ষণ নেন। এরপর তিনি ১৯ বছর বয়সে দাদু (১৯৭২) নামক বাংলা চলচ্চিত্রে প্রথম কাজ করেন।

বাপ্পী লাহিড়ী ১৯ বছর বয়সে মুম্বাইয়ে স্থানান্তরিত হন। ১৯৭৩ সালে হিন্দী ভাষায় নির্মিত নানহা শিকারী ছবিতে তিনি প্রথম গীত রচনা করেন। এরপর তাহির হুসেনের জখমী (১৯৭৫) চলচ্চিত্রে কাজ করেন। এতে তিনি গীত রচনাসহ গায়কের দ্বৈত ভূমিকায় অংশ নেন। অসম্ভব কিছু নয় শিরোনামে মোহাম্মদ রফি এবং কিশোর কুমারের সঙ্গেও দ্বৈত সঙ্গীতে অংশ নেন। তার পরের চলচ্চিত্র হিসেবে চালতে চালতে ছবিটির গানও দর্শক-শ্রোতাদের কাছে জনপ্রিয়তা অর্জন করে। রবিকান্ত নাগাইচের সুরক্ষা ছবিতে গান গেয়ে সঙ্গীতকার হিসেবে জনপ্রিয়তা পান।

মিঠুন চক্রবর্তীর ডিস্কো নাচের চলচ্চিত্রগুলোতে তিনি সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে কাজ করেন। ১৯৮০’র দশকে মিঠুন চক্রবর্তী এবং বাপ্পী লাহিড়ী একসঙ্গে বেশ কিছু ভারতীয় ডিস্কো চলচ্চিত্রে কাজ করেন। এছাড়াও তিনি দক্ষিণ ভারত থেকে পরিচালিত অনেক হিন্দী চলচ্চিত্রের গানে অংশ নিয়েছেন। ভারতবর্ষে তিনি নিজেকে ‘ডিস্কো কিং’ নামে পরিচিতি লাভে সমর্থ হন।

বাপ্পী ভারতীয় চলচ্চিত্র জগৎ থেকে ১৯৯০ এর দশকে দূরে সরে যান। প্রকাশ মেহরা’র ‘দালাল’ ছবিতে স্বল্প সময়ের জন্য ফিরে আসেন।

নিউজটি শেয়ার করুন...


© 2022 Sangbadnarayanganj.com - All rights reserved
Design & Developed by POPULAR HOST BD