বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৫৭ পূর্বাহ্ন

ভাবির সঙ্গে স্বামীর প্রেম, জেনে যাওয়াই জীবন গেল স্ত্রীর

সংবাদ নারায়ণগঞ্জ:- নড়াইলের কালিয়ায় গৃহবধূকে হত্যা করে গাছের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। স্বামীর পরকীয়ার কথা জেনে যাওয়ায় তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি স্বজনদের।

মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার পুরুলিয়া ইউনিয়নের চন্দ্রপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহতের নাম সাথী বেগম। ২০ বছর বয়সী সাথী একই গ্রামের নাসির মৃধার স্ত্রী ও বাহির ডাঙ্গা গ্রামের ফসিয়ার মোল্যার মেয়ে। সাথীর সাত মাস বয়সী একটি ছেলে রয়েছে।

জানা গেছে, প্রায় দুই বছর আগে চন্দ্রপুর গ্রামের ওমর মৃধার ছেলে নাসিরের সঙ্গে সাথী বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই তাদের ঝগড়া লেগে থাকতো। তাকে প্রায়ই নির্যাতন করতেন নাসির। বিষয়টি নিয়ে পরিবারের কাছে অভিযোগও করেন সাথী। এক সময় স্বামী নাসির ও জাল লাবনীর পরকীয়ার কথা জানতে পারেন তিনি।

২৮ ডিসেম্বর রাতে হঠাৎ সাথীর পরিবারের কাছে ফোনে শ্বশুরবাড়ি থেকে জানানো হয়, সাথী স্ট্রোক করে মারা গেছেন। এ ঘটনা শুনে পরিবারের লোকজন সাথীর শ্বশুরবাড়ি যান। কিন্তু নিহতের শ্বশুরবাড়ির পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাড়ির পাশের একটি গাছে ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে সাথী আত্মহত্যা করেছেন। পরে তার জা লাবনী দা দিয়ে ওড়না কেটে তাকে নামিয়ে ডাক্তারের কাছে নিলে সাথীকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

নিহতের ভাই সবুজ মোল্যা বলেন, ‘আমাকে ফোনে বলল সাথী স্ট্রোক করেছে। পরে বলছে আত্মহত্যা করেছে। আমার বোনকে ওরা মেরে ফেলেছে, শরীরে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন দেখেছি। আমার বোনকে তারা হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে রেখেছে। আমি এর বিচার চাই’।

কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেখ কনি মিয়া বলেন, এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। মৃত্যুর সঠিক কারণ জানার জন্য মরদেহ উদ্ধার করে নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী নাসির ও নাসিরের ভাবি লাবনী বেগমকে আটক করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন...


© 2022 Sangbadnarayanganj.com - All rights reserved
Design & Developed by POPULAR HOST BD